Home / সাহিত্য / শাহ সাবরিনা মোয়াজ্জেম এর দু’টি কবিতা

শাহ সাবরিনা মোয়াজ্জেম এর দু’টি কবিতা

নিস্প্রাণ
*

স্বপ্ন মধুর আলিঙ্গন
নাহ কানামাছি!
হাড়ির শব্দ কুড়ির শব্দ
জীবন্ত ছপ ছপ জলের শব্দ।

পাশাপাশি শয্যা
কার জলে ঢেউ গুনে
কার তরি বেশী গুণ টানে
যৌবন তোর এক চক্ষুর
শ্বশত প্লাবণ শর্বরী!

অপেক্ষায় নারাজ যমরাজ
প্রাণ সঞ্চারের পুর্বে
ধল ভোরের সমাপন।
কোন পাত্রে সম্প্রাদান
দৃশ্যের ওপিঠে অনিন্দ্য মগ্ন রাত!
পুরোনো সুখে মাখামাখি
যৌবন তুমি মক্ষিক্ষার খেল!

হয়নি মধুর বাসর
এক সখিনার পিঠে
আরেক সখিনার কোমর দোলে
নিস্প্রাণ আর নিস্প্রাণ!!!
(নিজে পড়ুন অন্যকে পড়তে উৎসাহিত করুন)

সুরুত
*

অভিমানি জানালা গলে
হঠাৎ মায়াবী চাঁদ ছুটে পালালো
দক্ষিণের বারান্দায়!

আমি নিস্পলক চেয়ে হতভম্ব ঘোর নিশি!
উথলিয়া দুরন্ত দেহের সৈকত দোল খায়, শরতের তান্ডবে।
যা তামাশার আড়ালে মোড়ানো কিছু উচ্ছিষ্ট চুম্বন!
আমি গিলে খেলাম কামনার জ্বালায়!

জীবন আলিঙ্গন করে নক্ষত্রের কুন্তল কে!
ঝরে যায় কিছু আগাছা মায়া!
যা ছিলো আমার শূন্য পুণ্যের মমত্ব!

মমত্ব বাকি রেখে শার্শি দোলালাম!
যেখানে অলৌকিক আত্মা নামে!
দেখি পেত্নী রূপ আমার দুর্ভেদ্য কাঁচে!

বারোয়ারী বাঁশিতে রক্তের নহর!
ক্ষয়ে যায় ইঞ্চি ইঞ্চি প্রেম!
সুখের স্পর্শ ষোল আনা প্রভুর ঘরে!

সাত আসমানে ওই ঈশ্বরের বাস!
আত্মার স্পর্শে জেগে ওঠে
নীল ঘরে মশারী টাঙ্গানো গোঙানি!

দুর, এই পাড়ায় ঈশ্বর নেই।
ঈশ্বর ভদ্রপল্লীর বেহেশত খানায়!
যেখানে সুবহ সাদেক থেকে
ফের সুবহ সাদেক পর্যন্ত
শুধু অর্থের ডামাডোল বাজে!

এখানে শুধু নধর দেহের
নরকের দহন!
আর রাত দুপুরে কিছু অমানুষের (নেড়ি কুকুর)
ঘেউ ঘেউ!!!

Check Also

কাঁশবনে মন_ সফিউল্লাহ আনসারী

  তোমার যতো ধবধবে রং রাঙিয়ে দিতে আমায় দিও, কাশবনের হাওয়ায় তুমুল ভাবনাতে মেঘ ভরিয়ে …