Home / সাহিত্য / সালমা বেগ এর দু’টি কবিতা

সালমা বেগ এর দু’টি কবিতা

 

উত্তীর্ণ কবিতা চাই
*
বিনা অপরাধে পিষ্ট হয়ে যায় শিশিরস্নাত সবুজ ঘাস
সুগন্ধ-বাতাস বাক্যবাণে জর্জরিত হয়ে শূন্যতায় ভাসে নীলাকাশ
আকাশের পথে ছোট ছোট সুখ চলে যায় দিগন্ত পেরিয়ে
শিল্পের শিরায় রাক্ষসেরা বসে থাকে কলংকের দাগ দিয়ে।
অশ্রুপাতে দেবতার রোষ ধুয়ে যায়
কণে দেখা বিকেলে প্রণয় সুখ বাতাসে বেড়ায়
নিমিষে গজায় ঘাস ঊষর মাটির বুকে
অর্থহীন বাক্যবাণে দিশাহারা হলে দিশা খোঁজে পাই অনুপম সুখে।
একটু প্রশ্রয়ে নগন্য এ-কবি কবিতার চিত্রকল্প খোঁজে নীলিমায়
সমস্ত মনীষা দিয়ে পটভূমি আঁকে সমর্পিত কবিতায়।
আমি ঋণী ক্রীতদাসী নই নক্ষত্রের আলো খুঁজি ক্রুরতায়
আসন্ন বসন্তে প্রণয়িনী হই রূপ মহিমায়।
সৃষ্টির পূর্ণতা পেয়ে আকাঙক্ষার স্বপ্ন-বীজ বুনি
দেবতার বরে রাক্ষসেরা অমরত্ব পেয়েছে কে কবে শুনি?
যতোই আঘাত আসুক আঁধারে বজ্রপাত হোক
উত্তীর্ণ একটি কবিতার জন্য করে যাবো শোক।
২৭/৪/১৯

পতিতপবনে স্বর্গ মেলে না
*

আনন্দ স্বর্গের ভূমি ছুঁয়ে পাও নিদ্রা সুখ
পতিতপবনে স্বর্গ মেলে না হৃদয়ে জাগে পাপ বোধ
সমুদ্র-সাগর পরিমান ভালোবাসা পারি দিতে
তোমার স্বপ্নের গভীরে পুনর্বার আসি তোমারই বুকে
বাতাসে সর্বত্র কানাকানি অযথা দূর্নাম
ডালিয়া-টগর কখনো ভাসায় কী সুগন্ধি সুনাম?
পৃথিবীর বুকে সবুজ হয়ে আমায় থাকতে দাও
তৃষিত চাতক হয়ে কেন সবুজের মায়া কেড়ে নিতে চাও?
শরীরে শরীর সমর্পণ ভারী লজ্জাস্কর
মনে জাগে পাপ-বোধ হও কেন শরীর তস্কর!
চাইলেই কি মুছে ফেলা যাবে প্রণয়-চুম্বন চিহ্ন
স্পর্শগুলো যেন সারাক্ষণ হৃদয়-গভীর করেছে আচ্ছন্ন।

Check Also

কাঁশবনে মন_ সফিউল্লাহ আনসারী

  তোমার যতো ধবধবে রং রাঙিয়ে দিতে আমায় দিও, কাশবনের হাওয়ায় তুমুল ভাবনাতে মেঘ ভরিয়ে …