Breaking News
Home / সাহিত্য / আমারবাংলা ভার্চুয়াল সংখ্যা -২০২০

আমারবাংলা ভার্চুয়াল সংখ্যা -২০২০

মিতা চট্টোপাধ্যায়’র কবিতা

বসন্ত কোকিল মৃত্যু নিয়ে বিচলিত অথবা বিভ্রান্ত নাহলেও চলে মৃত্যু নিয়ে কাব্য! হয় বইকি, তবে আনন্দ সেখানে মামুলি কয়লা খনির শ্রমিক। মৃত্যু নিঃস্পৃহ ঠিক আমারই মতো তোমার ইচ্ছে অনিচ্ছের গ্রন্থীগুলোকে পাত্তা না দিয়েই আমি যেমন চুপিসারে তোমার সামনে দাঁড়াই, বাধ্য করি আমার সঙ্গে যেতে। ভালবাসতে শেখাই জীবনকে নিজে অচ্ছুৎ হয়ে। …

Read More »

মোজাম্মেল হোসেন‘র কবিতা

বন্ধু আমার মাটি তার বুক চিরে কি মায়ায় প্রস্ফুটিত করে সদ্য অবয়ব চেতন বা অবচেতন মনে বিদ্ধ হয়েছে কি কখনও? ধীরে ধীরে বেড়ে উঠা একদা প্রকান্ড মহীরুহ দেখেছ কখনও আস্ফালন? শান্ত নির্মলতায় অকাতরে বিলায় মৌলিক নিশ্চয়তা বেঁচে থাকার তবুও নিষ্ঠুরতার স্বাক্ষর রাখি আমরা পরখ করি তীক্ষ্ম ফলার ধার কে আছে …

Read More »

হাসান ইমাম ডালিম‘র দু’টি কবিতা

মহাজ্ঞানী ভাবি আমিই মহাজ্ঞানী, এগিয়ে যাই একটু খানি। দেখি সেথায় জ্ঞান নাই, আরো দূরে দেখতে পাই। গেলাম আমি আরও দূরে, জ্ঞান চলেছে অচিনপুরে। জ্ঞানের খোঁজে চুড়ায় উঠি, সেথায় আমি গুটিশুটি। দেখি জ্ঞানের মহা সাগর, আমি জ্ঞানের নূড়ি পাথর। জ্ঞান সাগরে খুজতে নারি, শুন্য মাথায় ফিরছি বাড়ি। জ্ঞানের পিছু ছোটে যারা …

Read More »

সানজিদা জামান সুমি‘র কবিতা

তুমি হয়ো না’কো বরবাদ কবিকে ভুল বুঝো না, দিও না অযথা অপবাদ। সৃষ্টিশীল মানুষ সহসা, ভুল সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না পারেন না কাউকে ঠকাতে। পারেন –নিজের জীবন দিয়ে, অন্যের জীবন বাচাঁতে। কবিকে ঠকাতে যেও না, ঠেকে যাবে,ধরিত্রী উঠবে কেঁপে। অন্যায়ের বিরুদ্ধে শুনোনি কখনও, কবির গর্জন-প্রতিবাদ!! গগনবিদারী হুংকারে কবি-আবর্জনা করেন সাফ, …

Read More »

সেলিনা রশিদ

ডিজিটালের গান বঙ্গবন্ধু জাতির পিতা বাংলাদেশের বাতি সেই বাতিটা ছড়িয়ে আজ গর্জে উঠলো নাতী। দিন বদলের পালা এখন ডিজিটালের গান উন্নয়নের জোয়ারে তাই জাগছে নতুন প্রাণ। শেখ হাসিনার পাশে থেকে আমরা করবো জয় মুজিব থেকে সজিব এলো নেই কোন আর ভয়। জয় বাংলার জয় সজীব ওয়াজেদ জয়।

Read More »

কাব্য সুমি সরকার‘র কবিতা

  যখন অনিয়মকে বদলানো দায় তখন নিজেকে গুছিয়ে বদলে যাওয়াটাই প্রয়োজন। গাছের মধ্যে জড়ানো লতাপাতা কে কাকে নির্ভরতা করে বাঁচে??? আজ সেই হিসেব খুব বেশি গোলমেলে লাগে। প্রয়োজনের আয়োজন বেলা শেষে ফুরোয় লাগামহীন চাহিদার স্বৈরশাসনের নাকানি চুবানিতে আজ আমি দিশেহারা। বিচ্ছিন্ন জীবন সুখের বসনের রঙের মতন বিবর্ণ হতে হতে আজ …

Read More »

মুজাহিদুল ইসলাম নাজিম’র কবিতা

তুমি চাইলেই নির্মাণ হতো একটি পৃথিবী বেঁচে যেতো প্রাণ,নেচে উঠতো রুহের জগৎ চাইলেই হয়ে উঠতো অনাবিল পথচলা। স্বার্থের টানে-বেদনার তানে ভরে উঠলো প্রেমপাড়া। সুখ সে তো নয় কারো পৈতৃক ভিটা হলেও হতেপারে অগ্নির ছিটা। আমি চাই বলেই তোমার পথ এতোটা মসৃণ! ভেবে দেখো,পরিশোধ করবে কি না আমার দেয়া ঋণ।

Read More »

ইলিয়াছ হোসেন’র দু’টি কবিতা

শরতের রূপ শরতের ভোরে আকাশে মেঘের ছুটাছুটি, দামাল হাওয়ায় নদীর তীরে কাশের লুটোপুটি। সহসা মেঘ ক্ষনিকের জন্য বৃষ্টি হয়ে আসে, বৃষ্টির ফাঁকে রবির কিরণ ক্ষণে ক্ষণে হাসে। রবি মেঘের লুকোচুরি চলে দিবারাত্রি শুভ্র বকে ডানা মেলে আকাশের হয় যাত্রি। বনের পাখির সুমধুর সুর শুনি হৃদয় ভরে, সাঁঝের বেলা হরষ নিয়ে …

Read More »

মুহিব্বুল্লাহ ফুয়াদ

শরৎ শরৎ খেলা মৃদুমন্দ হাওয়ায় দোলে সবুজ ধানের পাতা রোদের শিখায় মেলেছে ওই কোলাব্যাঙের ছাতা। মেলেছে শাপলারা ডানা পদ্মফুলের দলে খালের বুকে কাচের সড়ক হাঁটার ছলেবলে কাশ ফুলেরা ফুটেছে ওই দূরে বিলের ধারে দূর্বাঘাসে শিশিরবিন্দু হাসে পুকুরপাড়ে। নীল আকাশে সারি সারি সাদা মেঘের ভেলা গাঙচিল ও বক সারস খেলে শরৎ …

Read More »

বন্দ্যোপাধ্যায় ঝুমা’র কবিতা

জোনাকি মন” কে কাকে আশ্রয় দেয় অসহ্য সময়ে অকারণ অজুহাতে কেইবা পিছু ডাকে মনই শুধু জানে গোপন বিরহের ওষুধ অবহেলা উত্তাপে কে তাকে বেঁধে রাখে। ঘুরেফিরে আসে সন্দেহ ফেনা বুদবুদ পরিচয়ে হইনি কখনও চেনা মানুষ যা কিছু সহজ তাকে ফেলেছি দূরে আকাশে বাড়ালে হাত শুধুই ফানুস। মৃত্যু বেঁচে ওঠে স্বৈরাচারীর …

Read More »

সাজজাদ রায়হান

একাকী রাতে আরেকটা রাত আসলো ফিরে একাকীত্বের- কাক হয়ে হায় নেইকো যেন দেখা তীর্থের! চালে টিনটিন বাজছে বাদল আর ওদিকে বইছে খুবই চিন্তা মাথার চারোদিকে। সঙ্গী হয়ে নেই পাশে কেউ ঘুমাতে আজ তবু যেন তুলছে মনে সুমা রেওয়াজ! সে না থাকায় নেইকো রাতের সহভাগী আমার মতো আছে এমন- ক’ অভাগী? …

Read More »

সোহেল আহমেদ

বর্ষা বন্দনা বর্ষা আমার ভালোবাসা, দৃষ্টি আমার বৃষ্টিতে বৃষ্টি নুপুর, ছন্দ মুকুর, অপরূপ এক সৃষ্টিতে পদ্মপুকুর যৌবনা কদমফুলও মৌবনা বর্ষা গাঁথা মন-মগজে, বাঙালি এ কৃষ্টিতে। [এমন দিনেই এটা বলা যায়]  

Read More »

ইমরুল মিশু

ফিরে আসো নীল কপাল গুনে পেয়েছিলাম তোমাকে কিন্তু ভাগ্য বড় র্নিমম অসহায়, ভাগ্য দোষে আজ তোমাকে হয়তো হারাতে বসেছি আমি। আজ জানতে বড় ইচ্ছে হয় কি ছিল আমার অপরাধ, কেন আজ ভাগ্য নামের বেড়াজালে বন্দি হয়ে আছি আমি। নীল… তুমি কি পারোনা আবার সমস্ত ভুলের অবসান ঘটিয়ে আমার কাছে ফিরে …

Read More »

মেহেদী ইকবাল’র কবিতা

লক ডাউন তোমাদের শহরে আজ রোগী পাওয়া গেছে করোনার তোমাদের শহরকে তাই করা হয়েছে লক ডাউন! শহরের প্রবেশমুখে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট এখন আর কেউ ঢুকতে পারবে না তোমাদের শহওে তোমাদের শহর থেকে কেউ আর পারবে না বেরুতেও! জেলখানার কয়েদীরা এতোদিনে জেনে গেছে লক ডাউনের কথা ওরা হয়তো ভাবছে বসে বসে, …

Read More »

এরশাদ আহমেদ

স্বপ্নলোকের দেশে যাব ভাই অনেক দূরে প্রজাপতির পাখায় চরে- বিশ্ব ভুবন আকাশ পাতাল হিমালয়ের বৃহৎ চূড়ে। গলায় দিব বন্যমালা হাতে নিব জাদুর ডালা চোখে দিব স্বপ্ন কাঁকন লাল মতির মুকুট পরে। আমায় দেখে বলবে লোকে বিশ্বজয়ী খোকার চোখে অনেক স্বপ্ন অনেক আশা মা-নিবে তার কোলটি ভরে।

Read More »

আবু সাঈদ কামাল

কাক ও কোকিল কাকের বাসায় কোকিল হবার সাধ ছিলনা কভু কারো চোখে সেই উপমা হতে হয় রে তবু। বুঝিনি তো এত ঋণ যে হয়ে আছে জমা, তাই তো বলি, এই অধমকে করে দিয়ো ক্ষমা। কথা দিচ্ছি আর হবোনা তেমন উদাহরণ, ওই আঙিনায় আর যাবোনা হলেও মনে ক্ষরণ। নিষ্ঠার সাথে কোকিল …

Read More »

আফসানা আফাজ

আমার বাংলাদেশ বন-বাঁদার নদী পাহাড় সবুজের নেই শেষ, সে যে আমার স্বপ্নে ঘেরা সোনার বাংলাদেশ। লতা পাতা গাছগাছালী নির্মল পরিবেশ, সে যে আমার সবুজ শ্যামল সোনার বাংলাদেশ। নদীর কলতান পাখির গান ফুলের সমাবেশ, সে যে আমার মাতৃভূমি সোনার বাংলাদেশ। রবীন্দ্র নজরুল জসীম উদ্দিনের সুরের আবেশ, সে যে আমার প্রাণের প্রিয় …

Read More »

মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন

বিকেলের পাঠ ফুল আছে পাখি আছে শিশিরের জল, প্রজাপতি পাখা মেলে রুপ ঝলমল! ছায়া আছে মায়া আছে সবুজের নদী, পাতায় পাতায় রোদ,হাঁটে নিরবধি। দখিনা বাতাস আছে অফুরান সুখ, পাঁপড়িতে আঁকা যেনো শিশুদের মুখ। হঠাৎ বনের পাশে দেখে মা,র ছবি, মনের পকেটে ভরে সবুজের কবি। শিশুমন খুঁজে তবু স্বপ্নের সিঁড়ি, বিকেলের …

Read More »

আমজাদ শ্রাবণ’র কবিতা

ব্যর্থ প্রয়াস…. এবার না হয় থামো… এই যে এতকাল যে নদীটা খুঁড়ে চলেছো তার শেষ হলো কি..! বরং চেয়ে দেখো তোমার মৃত্তিকায় হেমন্তের হাতছানী তোমার অধরে ফাগুন নকশিকাঁথা সেখানে না হয় কিছু খোঁজো… যেখানে বরফ গলা স্রোত, সেখানে পাবে… খুঁজে দেখো সেখানে পাবে নিরেট হিউমাস! আবাদি জমি, জোয়াল লাংগল বলবান …

Read More »

দেলোয়ার হোসেন রতন’র দুটি কবিতা

  সত্যের পথচারী ময়লা জঞ্জাল মায়া ছাড়ি- আমি সত্যের পথচারী তাইতো মুখে মধুর হাড়ি- প্রশংসা কেবলই তারি। পাপ পুণ্যের হিসাব করি- তবু মিছে মায়ায় জগৎ ঘুরি যে দেয় সত্য ছাড়ি- আমার না লজ্জা তারি। মহাসত্য আড়াল করি- মিথ্যা নিয়ে বাড়াবাড়ি কি করে দিবে পাড়ি- ধরবে যেদিন মহামারী। তবুও মিথ্যে নিয়ে …

Read More »

আ.ফ.ম.আফজাল হাসান‘র দু’টি কবিতা

ভালোবাসা বুঝি এমনই হয় ভালোবাসা বুঝি এমনই হয় একজন সুখী হলে অন্যজন দুঃখী হয়! আমি বলি আসলে কেউ সুখী নয়! তুুমি,আমি,আমরা সবাই করছি অভিনয়! চন্ডী দাস ভেবেছিলো বারো বছর ধরে রজকিনী সুখে আছে একা একা ঘরে! বারো বছর পওে রজকিনী কয় চন্ডী ছাড়া রজকিনী কিবা সুখী হয়? ফরহাদ যখন শিরির …

Read More »

মুমতাহিনা মারিয়াম’র কবিতা

লকডাউন আজ শহরজুড়ে চলছে লকডাউন তাই কবিতার ঝুড়ি হলো উন্মাদ। মনের গহিন কোণে ,কারনে অকারনে বইছে তাদের অবাদ বিচরণ। আকাশের বুকে মেঘেদের লকডাউন প্যাঁজা তুলোর বাঁধন ভাঙা বৃষ্টির অবরোধ। স¦প্নের মতো সর্বত্র ছড়ানো কদমের পরশ, তপ্ত মরুতে জাগায় শিহরণ। মনের সংসার ঘিরে চলছে লকডাউন মধুচন্দ্রিমা বালিদীপে হোমকোয়ারেইনটাইন। ভালোবাসা অবিরাম,সুখ-অসুখে রাত …

Read More »

বিল্লাল মাহমুদ মানিক‘র দু’টি কবিতা

এসো ঘর বাঁধি সময়ের গতিপথে চলছে সময় তাতে কারো খেদ নেই, না থাকাই ভালো; কেবল তুমি ও আমি ছিলাম তখনো এখনো রয়েছি বেশ ভালোবাসা নিয়ে গল্পে-আড্ডায়, তোমার আমি হয়ে যাই কিংবা তুমিই আমার গোপন কাহিনী, তোমার কোমল স্পর্শ শিহরণ তুলে মনের গহীন কোণে হাসে ফুলে-ফলে। এসো দ্বিধাহীন মনে, এসো ঘর …

Read More »

হুমায়ুন কবির’র কবিতা

তিলোত্তমা কৃষ্ণ চূড়ার আবির রংয়ে আকুল হয়ে মন চাইছে তোমায় একটি কথা বলতে সারাক্ষণ তুমি রূপসী তুমি ষোড়সী ধরনীর বুকে বিস্ময় তুমি জানে গো বিশ্ববাসী অপরূপ রূপে সেজে যাও গো মুচকি মুচকি হেসে কত কবিতায় কত গানের সুরে বয়ছ তুমি ভেসে তব মুচকি হাসি তুলে হিয়ায় উতাল পাতাল ঢেউ তুমি …

Read More »

জাহান আশরাফ’র দু’টি কবিতা

এবং যুদ্ধ যদি মেরে ফেলার সুযোগ পাও মেরে ফেল এক ঝটকায়; ইঁদুর-বিড়াল খেলা বড্ড বীভৎস লাগে। টোপ গিলে ঝুলে যাওয়া মাছ ক্ষুধা,তৃষ্ণায় যতবার তড়পায়; ঠিক ততবার বিমর্ষ হই! তার‘চে বরং কারেন্ট জাল বিস্তার কর। ক্রমাগত বিশ্বাস জিইয়ে রাখে, যার নাগরিক প্রাপ্তিরেখায় শূন্য রাষ্ট্র তাকে মৃত্যুদণ্ড দাও; নতুবা ডেকোনা আর যুদ্ধে। …

Read More »

জাহান য়ারা রাণী’র কবিতা

দু:খ দু:খ নয়তো কল্পলোকের গল্প বলা রোদন ভরা হাহুতাস দু:খ হলো বুকের মধ্যে পাথরচাপা নির্জনতায় দীর্ঘশ্বাস! অর্থ বিভবে ধামাচাপা পড়েনা অভাব অনটনে বাড়ে তবু মরে না। ঔষধ সেবনে পুরোপুরি সারে না। মুল আছে ফুল নাই দু:খ বুঝি এমনটাই।

Read More »

রকিব লিখন‘র দুটি কবিতা

বিষ যে খায় আত্মহত্যা সেই করে তোমার জন্য হৃদয় ক্ষয়ে ক্ষয়ে রক্তস্নাত সুমদ্র হলেও তোমাকে বলবো না আমি আর কষ্ট নিতে পারছি না এই বুকে ঢেউ ভাঙ্গার খেলায় আমি এক মৃত বৃক্ষ অনট দাঁড়িয়ে থাকা ছাড়া আমার আর কোন পথ নাই। তুমি সুদূর কোন প্রকৃতি যা নীলাকাশে নীলাচল আমার ব্যথিত …

Read More »

এম বাহাদুর‘র দু’টি কবিতা

বিপ্লব আমার নাম আমি বিপ্লব বিপ্লব আমার নাম, অন্যায়ের বিরুদ্ধে গর্জন এটাই আমার প্রধান কাম। বাঘের থাবায় ছাড় পেলেও আমার কাছে নয়, অপরাধীর কঠিন শাস্তি আমি করি নিশ্চয়। আমি দুর্বার, রণরাজ, আমি দুর্জয়, আমি সত্য ও ন্যায়ের দাস – আমি নির্ভয়, বিপ্লব আমার নাম আমি মৃত্যুঞ্জয়। আমি বঞ্চিত মানুষের আমি …

Read More »

মার্স সোহাগ’র দু’টি কবিতা

জীবন্ত কবিতা আর যদি সব ঠিক থাকে সময়টা যদি আপন হয়, তাহলে প্রতিদিন সকালে পঠিত হবে সুন্দর একটা জীবন্ত কবিতা। একফালি হাসিতে উদিত হবে পুবের আকাশ কখনো কালো মেঘ কখনো শ্রাবনের রৌদ্রøাতে হবে পার একটা পড়ন্ত বিকাল বেলাশেষে হবে পাঠ একটা কবিতা অপেক্ষা আর আহøাদী বামাশ্বর ধ্বনীতে জুড়াবে হৃদয়; হৃদয়ের …

Read More »

ফজলে এলাহী‘র দু’টি কবিতা

বেদনার নৈঃশব্দ্যে সুখ সীমান্ত শরতের ধূূসর স্মৃতিময় আকাশে জীবনের বাঁকে বাঁকে কত স্মৃতি ভাসে, আপনজনের হঠাৎ হারিয়ে যাওয়া ভাঙচুর জীবনে চোখ ভিজে যায় জলে। অগোছালো জীবনে না পাওয়া প্রাপ্তি বটবৃক্ষের প্রাপ্তিতে চাওয়া-পাওয়ার অপেক্ষা, একজন বিবাগী তুলে নেয় কবিতার খাতা পৃথিবীর দুঃসময়ে প্রার্থনায় এখন ভরসা। বটবৃক্ষের সুস্থতায় বাঁচার আকুতি নিঃসঙ্গতায় অশ্রু …

Read More »

রানা জামান‘র দুটি কবিতা

জীবনের নৌকা নদীতে বিন্দাস নদীর শরীরে জীবনের নৌকা ভাসে ডুবে অভ্রে বানায় মিনার উর্মীর মুর্ছনা খুশির আতঙ্ক পাথরের সাথে হীরের সঙ্গম না হলেও চলছে সহাবস্থান কল্পনার ডিঙি বোরাক ছাড়িয়ে মঙ্গলে প্রাসাদ অনুপমে ভেংচি কাটে নিঃসঙ্গতা ঘোর কেটে ভোর হলে আফসোসের ভস্ম ফিনিক্স পাখির না হওয়ায় গোর সাপলুডু খেলায় উৎপটাং ভাবনা …

Read More »

দেওয়ান ইকবাল‘র দুটি কবিতা

  বানে ভাসা লজ্জা কি যে কষ্ট বাহে দুই দিন রান্না হইনি ঘর খানি ভাসি গেছে বানের জলে পুলাপান গুনার মুখের দিকে চাইবার পারি না বউডা আঁচলে মুখ লুকায়রে বাহে কিছু কইবার পারে না। মুই কি কখনো ভাবিছিনু হামার ঘরে রান্না হবেক লাই? কতজন কতকিছু দিয়ে গেল আমি তো মুখ …

Read More »

মুঈন হুদা‘র দু‘টি কবিতা

  মহামারী করোনাকাল বুঝি না, এ কেন এমন করে এল- সকলের চক্ষুশূল মহামারী করোনাকাল; প্রতিদিন রুটিন অফিস নানান কাজ সবি চলছিল ভাল অন্নসুখে দিন গুজরান। পাথর সময় কাজহীন এখন মনে পড়ে বার বার- তোমার আমার ফেলে আসা দিন; ছিল কত শত মান অভিমান- হাসি আনন্দ আর বেদনার গান; সময়ের স্রোতে …

Read More »

তোফায়েল তফাজ্জল‘র দুটি কবিতা

সেই কথাগুলো সেই কথাগুলো তারা রূপে দেদীপ্যমানের প্রতিশ্রুতি থাকলেও নিষ্প্রভ, নতুন অখাদ্য যোগের কারণে মেঘে প্যাচিয়ে যাওয়ার চক্রবালে এরা গায়ে কাঁটা দিয়ে ওঠা স্মৃতিগুলো স্থূলমনা থেকে বিকৃত ভড়ং নিয়ে নিচে নেমে নীরবে দাঁড়িয়ে গেছে খাদের কিনারে, হাঁ-মুখীর পেটে পড়ে হারাচ্ছে অস্তিত্ব। যা দেখে মন্দের হোতা বা দোসর কান খাড়া করে …

Read More »

শাহ সাবরিনা মোয়াজ্জেম’র দু’টি কবিতা

  সুরুত অভিমানি জানালা গলে হঠাৎ মায়াবী চাঁদ ছুটে পালালো দক্ষিণের বারান্দায়! আমি নিস্পলক চেয়ে হতভম্ব ঘোর নিশি! উথলিয়া দুরন্ত দেহের সৈকত দোল খায়, শরতের তান্ডবে। যা তামাশার আড়ালে মোড়ানো কিছু উচ্ছিষ্ট চুম্বন! আমি গিলে খেলাম কামনার জ্বালায়! জীবন আলিঙ্গন করে নক্ষত্রের কুন্তল কে! ঝরে যায় কিছু আগাছা মায়া! যা …

Read More »

অমলেন্দু বিশ্বাস’র কবিতা

হেমন্তের জার্নাল হৈমন্তী গোধূলী আভা চুঁয়ে পড়ছে লঞ্চের ওপর ডেকে বসে থাকা অফ হোয়াইটের স্কার্ট তন্বীর তীক্ষ চোখেল আহ্বান প্রজ্ঞাবতি কবিতা শরীর নিয়ে কবির সুমুখে। ওইদিকে চলমান ডেক থেকে জলযান দেখে নিচ্ছ কমলা-হলুদ বর্ণ কীভাবে বর্ণিত হচ্ছে সাগওে গোধূলী ভাষা কী তবে জীবনানন্দ গূঢ় অধ্যায়নে রেখে গেছেন হেমন্তে! হতে পারে …

Read More »

মৃধা আলাউদ্দিন‘র দুটি কবিতা

আমার সুখগুলো… তুষার খণ্ডিত লাল-নীল, ঝলমলে মোহময় রাতে আমি ভেসে যাই নীলনয়নার মাতাল নৃত্যে শাওন অথবা বৃষ্টির বেখেয়ালি বাতাসে বাইরে-বারান্দায়… পুড়তে থাকি পূর্ণিমা বা অসম রোদে। অথচ- একদিন প্রবল বিশ্বাসের মতো আমার সুখগুলোর আশ্রয় ছিল প্রিয়ার আঁচলে- শুভ্র-শান্তির অভয়ারণ্যে। জীবনে অনেক মেঘ আমার জীবনে অনেক মেঘ যার কোনো গ্রামঘর, শহর …

Read More »

মির্জা মুহাম্মদ নূরুন্নবী নূর‘র দু’টি কবিতা

প্রতিবাদ কবিতা তোমার হাত দুটি কঠিন কর জালিমের তরে মাজলুমের সাথে আজ বাড়াও তুমি সখ্যতা দেশে দেশে নিপীড়িত নিগৃহীত হচ্ছে যারা তাদের জন্য তুমি বাড়াও নিজের দক্ষতা। মানুষ নামের অমানুষ যারা এই দুনিয়াতে পুষ্প কোমল হৃদয়ে জায়গা দাও গো তোমাতে ভালোবাসার বাহুডোরে জড়িয়ে নিয়ে তাই তাদের থেকে তাড়াও মনের কালিমা …

Read More »

আসিফ খন্দকার‘র দু’টি কবিতা

ভাবপেয়ালা ভাল্লাগেনা কেমন জানি উদাস লাগে মন মনের ভিতর বিরূপ হাওয়ায় হচ্ছি উঢ়াটন এমন কেন লাগছে মনে মনকে বলি শোন্ আমি তো আর নই গো কবি নির্মলেন্দু গুন, বুকের ভিতর হেলাল হাফিজ দুঃখ করে ফেরী রবীন্দ্রনাথ চোখের পরে সঙ্গে সোনার তরী মধুসুদন দাঁড়িয়ে আছে হৃদয়াক্ষের তীরে তাঁদের মতো আমার কেন …

Read More »

কামরুল হাসান কামু‘র দুটি কবিতা

‘কথামালা‘ নদীর পাশে বসে জীবন দেখি। মেঘকাটা রোদ্দুর জলে খলবল করে, বালিহাঁসের পালক ছুঁয়ে যায় জলে। এই নদী সেই জল জানে কোথাকার পানিচিঠি বুকে ঢেউ তোলে, কোথাকার ছিটেফোটা পাথর, বালি,জলনৌকায় পেরুই নটিক্যাল মাইল পথ। হিসেব কষি,কতোদিন বালিহাঁসে ছুঁয়ে গেছে চিটচিটে শেওলাজল দাগ। কতোদিন জলরঙ মিশে গেছে এই নদীপাড়। হায় অরুণিমা! …

Read More »

সালমা বেগ এর দুটি কবিতা

কেউ নিলো না দায়,                           উত্তীর্ণ কবিতা চাই বিনা অপরাধে পিষ্ট হয়ে যায় শিশিরস্নাত সবুজ ঘাস সুগন্ধ-বাতাস বাক্যবাণে জর্জরিত হয়ে শূন্যতায় ভাসে নীলাকাশ আকাশের পথে ছোট ছোট সুখ চলে যায় দিগন্ত পেরিয়ে শিল্পের শিরায় রাক্ষসেরা বসে থাকে কলংকের দাগ …

Read More »

জসীম উদ্দীন মুহম্মদ এর দুটি কবিতা

 এসো রিহার্সাল করি যেভাবেই হোক যে সবসময় চলতেই থাকে কখনও বসে থাকে না ক্ষেতের আল, মুখরা রমণীর গাল এভাবেই একদিন যে ছুঁয়ে দেয় মরণ তাকেই কিনা আমরা বলি যাপিত জীবন! আমি রঙধনুর কথা ভাবি…. আকাশের বুকে সে যেনো এক করোনার টীকা এসো রিহার্সাল করি জীবনের গীত সাপের খোলসের মতো বদলে …

Read More »