ইলিয়াছ হোসেন’র কবিতা

শরতের রূপ

শরতের ভোরে আকাশে মেঘের ছুটাছুটি, দামাল হাওয়ায় নদীর তীরে কাশের লুটোপুটি। সহসা মেঘ ক্ষনিকের জন্য বৃষ্টি হয়ে আসে, বৃষ্টির ফাঁকে রবির কিরণ ক্ষণে ক্ষণে হাসে। রবি মেঘের লুকোচুরি চলে দিবারাত্রি শুভ্র বকে ডানা মেলে আকাশের হয় যাত্রি। বনের পাখির সুমধুর সুর শুনি হৃদয় ভরে, সাঁঝের বেলা হরষ নিয়ে ফিরি আপন ঘরে। শরৎ ঋতুর রূপ মাধুর্য আমায় সদা ডাকে, শুভ্র কাশের শোভা দেখতে বসে নদীর বাঁকে।

শরৎ আমায় কাছে ডাকে

শরতের ভোরে ঘাসের উপর শুভ্র শিশির হাসে শিশির কণার সৌন্দর্য দেখে জুড়ায় দু’আঁখি রবি মেঘের লুকোচুরি চলে শরতের আকাশে, শিউলি বেলী মাধবী ফুল সুবাস ছড়ায় বাতাসে। হরেক পাটের সোনালী আঁশে কৃষকের ভরে মন নদীর কুলে অপরাহ্নে বসে দেখি শুভ্র কাশবন দুরন্ত পবন সবুজ ধানের ক্ষেতে খেলে অবিরাম ঢেউ। সাঁঝের বেলা পাখির কূজন শুনতে মধুর লাগে নিঝুম রাতে জ্যোৎস্না দেখতে মনে জাগে সাধ, ইচ্ছে করে শরতে মনের হরষে ঘুরে বেড়াই অপরুপ রূপের গাঁয়ে…।

Check Also

কাঁশবনে মন_ সফিউল্লাহ আনসারী

  তোমার যতো ধবধবে রং রাঙিয়ে দিতে আমায় দিও, কাশবনের হাওয়ায় তুমুল ভাবনাতে মেঘ ভরিয়ে …