Breaking News
Home / রাজনীতি / উজানগ্রামে উঠান বৈঠকে অনুষ্ঠিত বিএনপি-জামায়াত মুখে ধর্মের কথা বললেও ইসলামের জন্য কিছুই করেনি_জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি

উজানগ্রামে উঠান বৈঠকে অনুষ্ঠিত বিএনপি-জামায়াত মুখে ধর্মের কথা বললেও ইসলামের জন্য কিছুই করেনি_জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ১৯৯৬ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বেগম খালেদা জিয়া সাভারসহ বিভিন্ন জায়গায় প্রকাশ্য জনসভায় বলেছিলেন, আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এলে মসজিদে আর আজানের ধ্বনি শোনা যাবে না, উলুর ধ্বনি শোনা যাবে। আওয়ামীলীগ আজ ১০ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতায়। এর আগেও ৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিলো কোন মসজিদে উলুর ধ্বনি শুনেছেন? ভারতে বা হিন্দুস্থানেও কোন মসজিদে উলুর ধ্বনি হয়নি। তাহলে ধর্ম নিয়ে কত মিথ্যাচার তারা করেছে? গতকাল কুষ্টিয়া সদর উপজেলার উজানগ্রাম হাইস্কুল মাঠে উঠান বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, জামায়াতে ইসলাম সারাজীবন আল্লাহর আইন চাই, সৎ লোকের শাসন চাই বলে শ্লোগান দিয়েছে। অথচ ২০০১ সাল থেকে জামায়াত বিএনপির সাথে রাষ্ট্রক্ষমতায় ছিলো কোন সৎ কাজটি করেছে আর আল্লাহর কোন আইনটি মেনেছে? হাওয়া ভবন তৈরী করে বিশে^র বুকে বাংলাদেশকে বারবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন করেছে। সারাদেশে মানুষ হত্যার মহোৎসব করেছে। গ্রেনেড হামলায় জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার জন্য হামলা চালিয়ে কত মানুষকে হত্যা করেছে। ইসলাম বিরোধী যত কাজ সব করেছে। অথচ মুখে ধর্মের কথা বলে রাজনীতি করেছে, সাধারণ মানুষকে ইসলামের নামে ধোকা দিয়েছে। ইসলামের জন্য এদেশে যা করেছেন তা সব বঙ্গবন্ধু এবং তাঁর কন্যা শেখ হাসিনা করেছেন। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশকে ওআইসি’র সদস্য করেছেন। ইসলামী ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছেন। টঙিতে বিশ^ ইজতেমার জায়গা বরাদ্দ, কাকরাইলে মসজিদের জায়গা বরাদ্দ, বায়তুল মোকাররম আধুনিকায়ন করেছেন। বঙ্গবন্ধু এদেশে ইসলাম বিরোধী মদ, জুয়া, হাউজি, ঘোড়দৗড় নিষিদ্ধ করেছিলেন। আর জিয়াউর রহমান রাষ্ট্র ক্ষমতা বন্দুকের নলের মুখে দখল করে মদের লাইসেন্সসহ হাউজি, জুয়াসহ সকল ইসলাম বিরোধী কার্যক্রম চালু করেছেন। বেগম খালেদা জিয়া এবং নিজামী গংরা ৫ বছরে ইসলাম বিরোধী কর্মকান্ড করেছে। অথচ বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কওমী মাদ্রাসাসহ সকল ইসলামি শিক্ষাকে একটি প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দিয়েছেন। বর্তমানে সারা বিশে^ ৩ জন সৎ, প্রজ্ঞাবান এবং নিষ্ঠাবান প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে শেখ হাসিনা একজন। যদি সৎ লোকের শাসন চান তাহলে দুর্নীতিবাজ বিএনপি ছেড়ে সৎ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সমর্থন দিন।
জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি আরও বলেন, এই দেশে যদি কেউ বিচার ব্যবস্থাকে কলুষিত করার চেষ্টা করে থাকে তবে সেটা বিএনপি’র সময়ই হয়েছে। আজকে বিএনপি অতীতের যে সমস্ত অপকর্ম করেছে তার ফল তাদের ভোগ করতে হবে। এইটা নিয়ে ক্ষোভ আক্ষেপ করে বা আদালত ও আইনের প্রতি প্রশ্ন করে বিতর্কিত করার চেষ্টা করে কোন লাভ হবে না, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে।
উজানগ্রাম ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ আয়োজিত উঠান বৈঠকে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি তাইজাল আলী খান, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী ফারুক উজ জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ হাসান মেহেদী, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক খন্দকার ইকবাল মাহমুদ, সদস্য হাবিবুল হক পুলক, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. শামস তানিম মুক্তি, সাংগঠনিক সম্পাদক আফরোজা আক্তার ডিউ, জান্নাতুল মাওয়া রনি, সেলিনা হক আয়না, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইয়াসির আরাফাত তুষার, সাধারণ সম্পাদক সাদ আহমেদ প্রমুখ।উজানগ্রামে উঠান বৈঠকে অনুষ্ঠিত
বিএনপি-জামায়াত মুখে ধর্মের কথা বললেও ইসলামের জন্য কিছুই করেনি

Check Also

শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের রাজনীতি প্রবর্তন করেছেন এরশাদ

জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদের বলেছেন, পল্লীবন্ধু এরশাদ এদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির রাজনীতি প্রবর্তন …

Leave a Reply