Breaking News
Home / জাতীয় / আইয়ুব বাচ্চুর জানাজা অনুষ্ঠিত, মানুষের ঢল

আইয়ুব বাচ্চুর জানাজা অনুষ্ঠিত, মানুষের ঢল

কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বাদ জুমা দুপুর ২টায় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় অংশ নেন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নেতাকর্মীরা। এ ছাড়া তার ভক্ত অনুরাগী, সহশিল্পী, চলচ্চিত্র অঙ্গনের গুণীজনরা শেষ শ্রদ্ধা জানানো শেষে জানাজায় অংশ নেনে। ভক্ত অনুরাগীদের অংশগ্রহণে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের প্রায় অর্ধেকটা পূর্ণ হয়ে যায়।
জানাজার নামাজ শুরু হওয়ার আগে আইয়ুব বাচ্চুর ছোট ভাই জুয়েল সবার উদ্দেশে বলেন, আপনাদের প্রিয় আইয়ুব বাচ্চু সব সময় বাবা-মার প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন। সবাইকে নিজের বাবা-মাকে শ্রদ্ধা করতে বলতেন। এই প্রিয় মানুষ আর আমাদের মাঝে নেই। জীবনে চলার পথে ইচ্ছায়-অনিচ্ছায় যদি আইয়ুব বাচ্চু কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকেন তাহলে সবাই উনাকে মাফ করে দেবেন।

এর আগে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সকাল ১০টা ২৫ মিনিট থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয় আইয়ুব বাচ্চুকে।

জানাজা শেষে মগবাজারে কাজী অফিস গলিতে আইয়ুব বাচ্চুর গান তৈরির কারখানা ‘স্টুডিও এবি কিচেন’-এ শেষবারের মতো তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে আনুষ্ঠানিকতা শেষে চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় জানাজা। চ্যানেল আইয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ আবারও স্কয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হবে। সেখান থেকে চট্টগ্রামে নেয়া হবে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ।

জানা গেছে, পারিবারিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তার শেষ ঠিকানা হচ্ছে চট্টগ্রামের এনায়েত বাজারের পারিবারিক কবরস্থান।

এ বুঝি সুরের জাদুকরের শৈশবে ফেরা। কারণ, এই এনায়েত বাজারেই তার জন্ম আর বেড়ে ওঠা।

গতকাল বৃহস্পতিবার মাত্র ৫৬ বছর বয়সে আইয়ুব বাচ্চু মারা যান। তার আকস্মিক মৃত্যুতে সারা দেশে শোকের ছায়া নেমে আসে।

আইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত

কিংবদন্তি সংগীত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে রাজধানীর মগবাজারের কাজী অফিস গলির মসজিদের সামনে এই জানাজা হয়। এর আগে এই গলিতে আইয়ুব বাচ্চুর যে স্টুডিও ছিল সেই ভবনের সামনে তার মরদেহ রাখা হয়। আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ দেখতে ছুটে আসেন কাউন্সিলরসহ স্থানীয় বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ। অনেককেই গুমরে গুমরে কাঁদতে দেখা যায়।

আইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় জানাজায় রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মঈনুল হোসেন, নাট্যকার সালাহউদ্দিন লাভলু, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আব্দুর নূর তুষার, বিএনপি নেতা বজলুল করিম চৌধুরী আবেদসহ অনেকে অংশ নেন।

তৃতীয় নামাজে জানাজার জন্য আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ তেজগাঁওয়ের চ্যানেল আইয়ের ভবনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। চ্যানেল আইয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ আবারও স্কয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হবে। সেখান থেকে চট্টগ্রামে নেয়া হবে তার মরদেহ।

মগবাজার এলাকার বাসিন্দা বজলুল করিম চৌধুরী আবেদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘বাচ্চু ভাই এই মহল্লায় প্রায় ২০-২৫ বছর ধরে বসবাস করছেন। তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তিনি জান্নাতবাসী হোন এটাই আমাদের প্রার্থনা।’

এর আগে শুক্রবার বাদ জুমা দুপুর ২টায় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এই জানাজায় অংশ নেন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নেতাকর্মীরা। এ ছাড়া তার ভক্ত অনুরাগী, সহশিল্পী, চলচ্চিত্র অঙ্গনের গুণীজনরা শেষ শ্রদ্ধা জানানো শেষে জানাজায় অংশ নেনে। ভক্ত অনুরাগীদের অংশগ্রহণে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের প্রায় অর্ধেকটা পূর্ণ হয়ে যায়।

প্রথম জানাজার নামাজ শুরু হওয়ার আগে আইয়ুব বাচ্চুর ছোট ভাই জুয়েল সবার উদ্দেশে বলেন, আপনাদের প্রিয় আইয়ুব বাচ্চু সব সময় বাবা-মার প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন। সবাইকে নিজের বাবা-মাকে শ্রদ্ধা করতে বলতেন। এই প্রিয় মানুষ আর আমাদের মাঝে নেই। জীবনে চলার পথে ইচ্ছায়-অনিচ্ছায় যদি আইয়ুব বাচ্চু কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকেন তাহলে সবাই উনাকে মাফ করে দেবেন।

এর আগে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সকাল ১০টা ২৫ মিনিট থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয় আইয়ুব বাচ্চুকে।

জানা গেছে, পারিবারিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আইয়ুব বাচ্চুর শেষ ঠিকানা হচ্ছে চট্টগ্রামের এনায়েত বাজারের পারিবারিক কবরস্থান। এ বুঝি সুরের জাদুকরের শৈশবে ফেরা। কারণ, এই এনায়েত বাজারেই তার জন্ম আর বেড়ে ওঠা।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নিজ বাসায় অচেতন হয়ে পড়েন তিনি। এরপর স্কয়ার হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মাত্র ৫৬ বছর বয়সে আইয়ুব বাচ্চুর এই মৃত্যুতে সারা দেশে শোকের ছায়া নেমে আসে।

Check Also

ইংরেজি নববর্ষ ২০২১ এর শুভেচ্ছা

আমারবাংলার সকল পাঠক,লেখক ও শুভানুধ্যায়ীদের.. ইংরেজি নববর্ষ ২০২১ এর শুভেচ্ছা

Leave a Reply